• Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1

রাজশাহী: শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮

ঘনবসতিপূর্ণ ওয়ার্ড, মাদক-জুয়ার আড্ডা

ওয়ার্ড-২৩
স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর যে কটি ওয়ার্ডে মাদক ও জুয়ার আসরের রমরমা বাণিজ্য ও সহজলভ্যতা রয়েছে তার মধ্যে ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের রয়েছে কুখ্যাতি। এই ওয়ার্ডের নদী তীরবর্তী বেশ কিছু বস্তি এলাকা রয়েছে। রয়েছে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাও। এই এলাকার স্থানীয় কিছু পরিবার সরাসরি মাদক ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত। এলাকাবাসীর পাশাপাশি নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকেও এখানে মাদক কিনতে আসে স্থানীয় মাদক সেবীরা। এছাড়াও নদী তীরে নিয়মিত বসে জুয়া ও মাদকের আসর। এর প্রভাব পড়ছে এলাকার কিশোর ও তুরুণদের মাঝে।
নগরীর বোসপাড়া, পঞ্চবটি, টিকাপাড়া, সাগড়পাড়াসহ আশপাশের বেশকিছু মহল্লা নিয়ে ২৩নং ওয়ার্ড। এবারে ওয়ার্ডটিতে ৫জন কাউন্সিলর প্রর্থীরা হলেন মাহতাব হোসেন চৌধুরী, সৈয়দ আরাফাত মতিন সজীব, মইফুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম ও বজলুল হক মন্টু। ভোটার সংখ্যা ৬হাজার ৮৯০।
স্থানীয় ২৩নং ওয়ার্ডবাসীর অভিযোগ অপর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, অপরিচ্ছন্ন জলাশয়, অল্প বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতা, মশা-মাছির উপদ্রপ, ভাঙা রাস্তার পাশাপাশি মাদক-জুয়ার সহজলভ্যতা ও কর্মস্থানের অভাবের কারণে এলকাবাসী নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনে ব্যর্থ হচ্ছেন। মাদক ও জুয়ার সহজলভ্যতায় সবচাইতে বেশি প্রভাবিত এলাকার যুবক ও তরুণ সমাজ; সেই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষতিগ্রস্ত তাদের পরিবার।
এদিকে স্বয়ং কাউন্সিলর তার কর্মকান্ডে নিজেও ওয়ার্ডটিতে সমালোচিত। ওয়ার্ডটির মসজিদগুলোতে অনুদানের অর্থ নিয়ে অনিয়ম, টিকাপাড়া গোরস্থানের মুল্যবান বৃক্ষ কেটে বিক্রি করে দেয়ার মতো গুরুতর অভিযোগ রয়েছে বর্তমান কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে। নানা অনিয়ম ও অভিযোগের কারণে তাকে মহানগর আওয়ামী লীগের পদ থেকে বরখাস্ত পর্যন্ত হতে হয়েছে।
পঞ্চবটি এলকার বাসিন্দা বলেন, শাহমখদুম কলেজের আশপাশের এলাকাটি ঘনবসতিপূর্ণ এবং বস্তি। এখানকার জীবনমান নি¤্ন। রয়েছে রাস্তা ও ড্রেনের সমস্যা। একটু বৃষ্টিতেই পানি জমে জায়। সেই সাথে মশার উৎপাত তো রয়েছেই। আর বাসা-বাড়ির আবর্জনা যত্রতত্র পড়ে থাকায় দুর্গন্ধ ও দুর্ভোগ দুই বাড়েছে। আমাদের ভাগ্য পরিবর্তনে তেমনকোন কর্মকান্ড এ কয় বছরে দেখিনি। এদিকে কিশোর ও যুবকদের অভিযোগ ওয়ার্ডটিতে নেই বিনোদনকেন্দ্র ও খেলার মাঠ।
কাউন্সিলর প্রার্থী সৈয়দ আরাফাত মতিন সজীব বলেন, এই ওয়ার্ডে যুবকদের মাঝে মাদক ঢুকে পড়েছে। মাদক থেকে যুবকদের ফিরিয়ে আনতে তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে হবে। আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে ওয়ার্ডের যুবকদের নিয়ে কাজ করতে চাই। তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে চাই।
এদিকে ওয়ার্ডবাসীর অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে বর্তমান কাউন্সিলর মাহতাব হোসেন চৌধুরীর মোবাইলে কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।