• Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1

রাজশাহী: শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

রাজশাহীর আদালত পাড়ায় ব্যস্ততার মাঝেও বিনোদন

শেখ রহমত উল্লাহ: রাজশাহী জেলা জজ আদালতের আইনজীবী ও মোহরীদের দিন শুরু হয় বিভিন্ন কর্ম ব্যস্ততার মধ্য দিয়ে। সকাল থেকে শুরু হয় কাজ। মক্কেলদের হাজিরা, ওকালতনামা, বেল্ড বন্ড, ফিরিস্তি যেন তাদের সকালের সঙ্গী। দিন গড়িয়ে সকাল দশটা বাজলেই ব্যস্ততা যেন আরো বেড়ে যায়। শুরু হয় কোর্টের কর্মযজ্ঞ। এক ভবন থেকে অন্য ভবন, আর এক আদালত থেকে অপর আদালত ছুটে বেড়াতে হয় তাদের। আদালতে মক্কেলের হাজিরা, জামিন করানো আর সুষ্ঠ যুক্তি-তর্ক শুনানীই তাদের অফিস সময়ের বড় কাজ।
দিন গড়িয়ে দুপুর হয় আদালতের কাজের চাপ কিছুটা কমলেও তা যেন শেষ হতে চায়না। দুপুরে মামলার ফলাফলের হিসেব কষেন আইনজীবী ও তার মোহরীরা। তার পর শুরু হয় পরবর্তি দিনের প্রস্তুতি। ডেট তোলা, পিটিশন লেখা, নারাজী লেখা ও সাক্ষীর প্রস্তুতীর মত আরো অনেক ধরনেরই প্রস্ততী নিতে হয় তাদের। দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যে নামলেও তাদের ব্যাস্ততার যেন শেষ নেই।
এরই মাঝে অনেক আইনজীবীকে আড্ডাবাজীতে মেতে থাকতে দেখা যায়। আদালত ও মক্কেলদের সাথে তাদের যত কাজই থাকুকনা কেন তারা একটু ভিন্ন ধর্মী বলেই আদালত পাড়ায় পরিচিত। সকল ব্যস্ততাকে দু-হাতে ঠেলে সরিয়ে দিয়ে চায়ের কাপে লম্বা চুমুকের মাধ্যমে দাবার গুটি চালা-চালি শুরু করেন। ঘন্টার পর ঘন্টা কেটে যায় এ খেলায়। কোন প্রকার ক্লান্তির ছাপ যেন তাদের চোখে-মুখে দেখতে পাওয়া যায়না। গভীর ধ্যানে মগ্ন হয়ে দাবা খেলতে দেখা যায় তাদের। আইনজীবী ও মোহরীর মধ্যে পদবীগত কিছু পার্থক্য থাকলেও দাবা খেলা যেন তাদের একই প্লাট-ফর্মে নিয়ে এসেছে।
প্রায় দুই যুগেরও অধিক সময় ধরে দাবা খেলা চলে আসছে বলে জানান, সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ। তিনি বলেন এখানেতো তেমনভাবে খেলা হয়না। এমনি খেলি। এক টেবিলে আমরা দুইজন খেললেও অনেকেই চাল দিয়ে থাকি শুধুমাত্র হাসি আনন্দের জন্য এই খেলা।
আর দাবা খেলার এক ফাঁকে রাজশাহী বারের সিনিয়র মোহরী জালাল উদ্দিন বলেন, যুগের পর যুগ এ খেলার প্রচলন হয়ে আসছে রাজশাহী ১নং মোহরী বার ভবনে। কাজের ফাকে খেলার মাধ্যমে একটু বিনোদন আমাদেরকে সতেজ করে। আইনজীবী ও মোহরীদের মধ্যে পদের পার্থক্য থাকলেও এই খেলার মাধ্যমে আমরা এক টেবিলে মিলিত হয়ে থাকি। আমাদের মধ্যে একটি অন্যরকম বন্ধন তৈরি হয়ে থাকে।