• Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1

রাজশাহী: শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

রাজশাহীতে খরার কবলে আমন আবাদ

স্টাফ রিপোর্টার : আমন রোপণ শেষ হয়েছে। মাঠে পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক। তবে আমনের শুরুতেই বিপাকে পড়েছে কৃষক। বৃষ্টির পানি নির্ভর এ আবাদের সময়ে দেখা দিয়েছে খরা। এতে সেচ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। বৃষ্টির অভাবে মাঠের জমি শুকিয়ে গেছে। নিজেদের ধান বাঁচাতে গভীর নলকূপের পানির উপরে নির্ভর হয়ে পড়েছে। এতে আমন আবাদে খরচের পরিমান বাড়বে।
রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে তথ্য মতে, চলতি মৌসুমে রাজশাহী জেলায় আমনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭৩ হাজার ৩৩৫ হেক্টর জমিতে। এছাড়াও রাজশাহী অঞ্চলের, রাজশাহী, নঁওগা, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় আমন চাষাবাদ হবে আরো ৩ লক্ষ্য ৫০ হাজার হেক্টরের উপরে। এ অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের পরিমান কম হওয়ার কারণে আমন চাষ নিয়ে সংকটে পড়েছেন কৃষকরা। বৃষ্টির অভাবে অনেকেই ধান রোপণ করতে পারছিল না। মাঝে সামান্য বৃষ্টি হলে কোনমতে কৃষকরা মাঠে ধান রোপণ করতে পারে। এরপরে দেখা দিয়েছে খরা। এ খরায় মাঠের জমি শুকিয়ে গেছে।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ি, রাজশাহীতে সর্বশেষ বৃষ্টিপাত হয়েছে ৮ আগস্ট। ওই বৃষ্টিও কোনরকমে মাটি ভেজা। ওইদিন বৃষ্টিপাতের পরিমান ছিল মাত্র ৪ দশমিক ৬ মিলিমিটার। এরপরে রাজশাহীতে আর কোন বৃষ্টিপাত হয়নি। এরপর থেকে খরা নেমে আসে।
নওগাঁ জেলার পোরশা উপজেলার শুড়িপুকুর গ্রামের আব্দুল কাইয়ুম। তিনি ১৫ বিঘা জমিতে আমন চাষ করেছেন। ধান রোপণের পরে বৃষ্টি না হওয়ায় বিপাকে পড়েন তিনি। কৃষক আব্দুল কাইয়ুম বলেন, আমন ধান চাষ বৃষ্টির পানিতে হওয়ার কারণে খরচ কম হয়। কিন্তু ভরা মৌসুমে বৃষ্টি না হওয়ার কারণে সমস্যায় পড়েছি। গভীর নলকূপের পানি নিতে কৃষকদের লাইন দিতে হচ্ছে। শুধু তাই না, এতে কৃষকদের খরচের পরিমানও বেড়েছে।
রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা শুগনা গ্রামের কৃষক রুবেল জানান, চলতি মৌসুমে ২৫ বিঘা জমিতে স্বর্ণা জাতের ধান চাষাবাদ করেছেন। ধান রোপনের পর থেকেই বৃষ্টিপাত কমে গেছে। এতে করে সেচ সংকটে পড়েছেন তিনি। এখন জমিগুলোতে সেচ দিতে বাড়তি টাকা গুণতে হচ্ছে তাকে।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক আব্দুস সালাম জানান, রাজশাহী অঞ্চলে মৌসুমি বায়ু প্রবাহটা কমে গেছে। সে কারণে বৃষ্টিপাতের পরিমান কমে গেছে। মৌসুমি বায়ুর প্রবাহ শুরু হলেই বৃষ্টিপাতের পরিমান স্বাভাবিক হয়ে আসবে। অল্প দিনের মধ্যেই রাজশাহী অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে তিনি আশা করছেন।