• Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1
  • Meni 1

রাজশাহী: শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮

‘মানুষ এখন সাপের ওপর হামলে পড়ার আগে অন্তত ১ বার ভাবে’

সকাল ৬টা ৪১ মিনিট, ফায়ার সার্ভিসের আল ফাত্তা ভাইয়ের ফোন। চোখ মুছতে মুছতেই খবর পাই, গোখরো সাপ ঢুকেছে শোবার ঘরে। ফায়ার সার্ভিসের কথা শুনে আশ্বস্ত হলাম। কিন্তু না গিয়ে থামতে পারলাম না। কুমারপাড়া মন্নুজান স্কুলের আগেই যে বাঁকটা রয়েছে সেটার পাশেই সুরজিৎ বাগচির বাড়ি। যে ঘরের আড়াতে সাপটা ঝুলছে সেখানেই মশারি টাঙিয়ে তার দুই মেয়ে ঘুমাচ্ছিলো। প্রথম দেখাতেই বুঝলাম গোখরো সাপ। কিন্তু কোত্থেকে উড়ে এসে জুড়ে বসলো জানিনা।

তবে সে দেয়ালে একটা ফুটো রয়েছে সেখানে মাথা গুজে বসে রয়েছে। ফায়ার কর্মীদেরবললাম কি পদক্ষেপ? তারা সাড়া দিলেন না। বুঝলাম কাজ এগুবেনা। পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে জ্ঞান রেখে সাপ ধরায় অভিজ্ঞ পবার বোরহান রুমন ভাইকে ফোন করালাম, তিনি এ বিষয়ে যথেষ্ট আন্তরিক। পড়ি মড়ি করে আধাঘন্টা পর এলেন। এরই মধ্যে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরাও হাজির।

সবারই এক কথা এতো দেরী করা ঠিক হচ্ছেনা। এবার মারার অভিযান শুরু করা যাক। আমি বারবার বুঝিয়ে তাদের থামিয়ে রাখার চেষ্টা করেছি। বলেছি, মেরে কি হবে বরং ঝুঁকি বাড়বে। একটু থামুন! ফায়ার কর্মীরাও সবাইকে তাই বলে আশ্বস্ত করোলো। এবং শেষে জীবিত উদ্ধার করা গেলো। ভালো লাগছে এই ভেবে যে মানুষ এখন সাপের ওপর হামলে পড়ার আগে অন্তত ১ বার ভাবে। আমার কথা হলো। সর্বোচ্চ চেষ্টা করুন না মারার। এবং সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিন, সাপ যদি কাওকে কেটেও থাকে তবুও খবর দিন, তারাই আপনাকে হাসপাতালে নিয়ে যাবে। এবং উদ্ধারের চেষ্টা করবে। আতংকিত হবেন না। শান্ত থাকুন। তবে জরুরী বিষয় এটাই যে ফায়ার সার্ভিস দপ্তর কে সাপ উদ্ধার বিষয়ে যথেষ্ট প্রশিক্ষণ নিতে হবে। এবং উদ্ধারে চেষ্টা করতে হবে।

(সাংবাদিক আবরার সাঈর এর ফেসবুক থেকে সংগ্রহীত)